ঠিক কখন কি বলবেন | Exactly What To Say

‘এক্স্যাক্টলি হোয়াট টু সে’ ফিল এম জোনস রচিত সেলস এবং মার্কেটিংয়ের ওপর রচিত একটি বই।

ব্যবসায়িক আলোচনা, চুক্তি অথবা বিক্রির ক্ষেত্রে দু’জন মানুষের কথাবার্তা চলাকালীন কথোপকথনের নিয়ন্ত্রণ নেবার বিষয়টা খুবই গুরুত্বপূর্ণ। এর ওপর সফলতার সম্ভাবনা অনেকটাই নির্ভর করে। কথোপকথনের নিয়ন্ত্রণ নেয়া গেলে আলোচনার ফলাফলও নিজের দিকে নিয়ে আসা যায়। তো কথোপকথনের নিয়ন্ত্রণ নেবার জন্য দুনিয়াজুড়ে বিক্রয় বিষয়ক গবেষণার জন্য ‘মিস্টার ম্যাজিক ওয়ার্ড’ খ্যাত ফিল এম জোনস তার বইয়ে এমন কিছু কথা তুলে ধরেছেন যা কিনা সংলাপ চলাকালীন মানুষের ওপর আপনার নিয়ন্ত্রণ নিতে সহায়ক হবে।

শুধুমাত্র সেলস বা মার্কেটিং নয়, পরিস্থিতি বুঝে ঠিক কোন কথাটাই বলা উচিত সে বিষয়েও ধারণা দিয়েছেন তিনি। কেবল ব্যবসায়িক নয়, ব্যক্তিজীবনেও কথোপকথনের নিয়ন্ত্রণ নেয়া ও এর ফলাফল নিজের পক্ষে আনার বিষয়েও মারাত্মক কাজে দেবে বইটি। সঠিক সময়ে সঠিক কথাটা বলাটাও এনে দিতে পারে সফলতা। ‘এক্স্যাক্টলি হেয়াট টু সে’ পাঠকদেরকে সে বিষয়েই সচেতন করবে। বইটি সম্পর্কে বিখ্যাত জনের মতামত-

‘যদি আপনি যেকোন পরিস্থিতিতে অন্যের ওপর প্রভাব বিস্তার করতে চান তাহলে আপনাকে অবশ্যই এই বইটিতে বর্ণিত সহজ কিন্তু কার্যকরী উপায়গুলো পড়তে হবে। অন্যান্য বইগুলোর মতোই ‘এক্স্যাক্টলি হোয়াট টু সে’ মানুষের আচরণের ওপর প্রভাব ফেলতে সক্ষম- এই উপযোগীতা বইটির রয়েছে।’

-জন জ্যান্টস, ডাক্ট ট্যাপ মার্কেটিং বইয়ের লেখক।

‘ফিল জোনস কোনরূপ জোরজবরদস্তি ছাড়াও কিভাবে অন্যের ওপর প্রভাব বিস্তার করা যায় তা সুন্দরভাবে ব্যাখ্যা করেছেন। আপনি এই কার্যকরী উপায়গুলো দৈনন্দিন কাজে ব্যবহার করতে পারেন।’

-আয়ান আল্টম্যান, কলামিস্ট, ফোর্বস ডট কম।

‘বইটি প্রভাব বিস্তার, প্ররোচনা এবং ব্যবসায়িক খাতে অসামান্য সাফল্য আনার ক্ষেত্রে একটা সেরা কাজ। ব্যবসায়িক অথবা ব্যক্তিজীবনে মানুষের ওপর প্রভাব বিস্তারকারী হতে বইটি সবার পড়া আবশ্যক।’

-সেথ প্রাইস, দা রোড টু রিকগনিশন এর সহ-লেখক।

বিখ্যাত বইটির অনুমতি সাপেক্ষে বাংলা সংস্করণ প্রকাশ করতে যাচ্ছে প্রজন্ম পাবলিকেশন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *